মেকআপ বিহীন বউকে তালাক দিলেন স্বামী কিন্তু কেন

বিচিত্র ডেস্ক : বিয়ের দিন কম-বেশি সব মেয়েই মেকআপ করেন। এতে দেখতে বেশ সুন্দরই লাগে তাঁদের। সংযুক্ত আরব আমিরাতের ২৮ বছর বয়সী এক মেয়েও নিজের বিয়ের দিন সুন্দর করে মেকআপ করেছিলেন। তাঁকেও দেখতে বেশ সুন্দর লাগছিল। ৩৪ বছর বয়সী স্বামীও সুন্দরী স্ত্রীকে দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন।

তবে সেই মুগ্ধতা বেশিক্ষণ থাকেনি। সাঁতার কাটতে গিয়ে সুইমিং পুলের পানিতে স্ত্রীর মেকআপ ধুয়ে-মুছে গেলে বেঁকে বসেন স্বামী। তালাক দিয়ে দেন সদ্যবিবাহিত স্ত্রীকে।

পিটিআইয়ের এক খবরে বলা হয়েছে, সদ্যবিবাহিত দম্পতি বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরে চলে যান শারজার আল মারজার সমুদ্রসৈকতে। আর সেখানে সাঁতার কাটতে নেমেই বিপাকে পড়েন নববধূ। পানিতে তাঁর মেকআপ মুছে গেলে স্বামী আঁতকে ওঠেন। তখন তিনি দাবি করেন, এই মেয়েকে তিনি চিনতে পারছেন না। কারণ, তাঁর সদ্যবিবাহিত স্ত্রী দেখতে অন্য রকম ছিলেন।

গালফ নিউজের খবরে বলা হয়েছে, বিয়ের সময় স্ত্রীকে যেমন দেখাচ্ছিল, তেমন না দেখানোয় তিনি তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে অতিরিক্ত প্রসাধন ব্যবহার করে তাঁকে বোকা বানানোর অভিযোগ তোলেন।

বিয়ের পরপরই বিবাহবিচ্ছেদের শিকার হয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়া মেয়েটি আবদুল আজিজ আসাফ নামের এক মনোরোগের চিকিৎসকের কাছে যান। তিনি গালফ নিউজকে বলেন, মেয়েটি তাঁকে বলেছেন যে বিয়ের আগে তিনি কিছু কসমেটিক সার্জারি করেছেন। মেকআপ করে তিনি বিষয়টি ঢেকেছেন। আর বিষয়টি তিনি তাঁর স্বামীকে জানাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সেটি জানানোর আগেই তাঁর স্বামী তাঁকে তালাক দিয়ে দেন। বিষয়টির একটা সুরাহা করতে ওই নারী এই চিকিৎসকের কাছে অনুরোধ জানান। তিনি চেষ্টাও করেন। তবে ওই ব্যক্তি জানিয়ে দেন, কোনোভাবেই তিনি আর এই মেয়েকে স্ত্রী হিসেবে গ্রহণ করবেন না।

Check Also

পেপসি খেয়েই ৬০ বছর পার

গত ৬০ বছর ধরে পেপসি খেয়েই বেঁচে আছেন ৭৭ বছর বয়সি এক বৃদ্ধা। দিনে এই …