‘মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়া গেলেও মন্দিরে হাত দেয়া যায় না’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিজেপি’র সিনিয়র নেতা ও রাজ্যসভার এমপি সুব্রমনিয়াম স্বামী বলেছেন, ‘মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়া যায় কিন্তু মন্দির ধ্বংস করা যায় না, কারণ সেখানে ভগবান থাকেন।‘ তিনি মসজিদ এবং মন্দির সমান প্রতিষ্ঠান নয় বলে মন্তব্য করেছেন।
বিজেপি নেতা সুব্রমনিয়াম স্বামী বলেন, ‘লোকেদের মধ্যে ভুল ধারণা রয়েছে যে মসজিদ এবং মন্দিরের সমান গুরুত্ব রয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘মসজিদ কেবলমাত্র মুসলিমদের নামাজ পড়ার জন্য সুবিধাজনক স্থান। নামাজ যেকোনো জায়গায় পড়া যায়। কিন্তু মন্দির নিয়ে আমরা বিশ্বাস করি সেখানে ভগবান থাকেন এবং তিনিই এর মালিক। মসজিদের মালিকানা নিয়ে অনেক লোক দাবি জানাতে পারে। সেই হিসেবে একমাত্র ভগবান রাম মন্দিরের মালিক।
তার মতে, এজন্য মসজিদ অপসারণ করা যায়, ভেঙে ফেলা যায় কিন্তু মন্দিরে মূর্তি স্থাপনের পরে তাকে স্পর্শও করা যায় না।
স্বামী এর আগে বাবরী মসজিদ-রাম মন্দির বিতর্কে মুসলিমদের উদ্দেশ্যে সমঝোতার আহ্বান জানান। কিন্তু মুসলিম সম্প্রদায় তাতে সম্মত না হলে ২০১৮ সালে সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠ হলে মন্দির নির্মাণের জন্য আইন পাস করানো হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন।
তিনি মুসলিমদের উদ্দেশ্যে সরযূ নদীর ওপারে মসজিদ নির্মাণ করার পরামর্শ দিয়ে রাম মন্দিরকে রামের জন্মভূমিতে নির্মাণ করতে দেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন।
১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় কয়েকশ’বছরের পুরোনো বাবরী মসজিদকে প্রকাশ্য দিবালোকে উগ্রধর্মান্ধরা ধ্বংস করেছিল। হিন্দুত্ববাদীদের দাবি, মসজিদের স্থানই হল ভগবান রামের জন্মভূমি তাই সেখানে রাম মন্দির নির্মাণ করতে হবে। তারা ‘মন্দির ওহি বানায়েঙ্গে’(মন্দির ওখানেই তৈরি করা হবে) বলে জিদ ধরে আছেন। অন্যদিকে, মুসলিমরা জোর দিয়ে বলছেন, শহীদ হওয়া মসজিদের স্থানে মসজিদই পুনর্নির্মিত হবে এটাই ইনসাফ।
সূত্র : পার্সটুডে

Check Also

বিদেশে নয় দেশের মাটিতেই বিয়ের পরিকল্পনা রকুল-জ্যাকির

সংবাদবিডি ডেস্ক ঃ রকুল প্রীত সিং ও জ্যাকি ভাগনানির বিয়ে ২১ ফেব্রুয়ারি। বিয়ের প্রস্তুতি এখন …