ভারতের দেয়া পদক দেশবাসীকে উৎসর্গ করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিবেশী দেশের মধ্যে সমস্যা থাকলেও সহযোগিতার মানসিকতা নিয়ে সমাধান করে যাচ্ছে তার সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো উন্নত করতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখার কথা জানান তিনি।

সোমবার ( ১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ভারতের ডক্টর কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স পদক- ২০১৯ গ্রহণ করে এসব বলেন শেখ হাসিনা। এ সময় যাবতীয় সম্মাননা দেশের মানুষকে উৎসর্গ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে সুসম্পর্ক স্থাপন, দেশের জনকল্যাণে নিজেকে নিবেদিত করা, নারী ও শিশু অধিকার নিশ্চিতে প্রাধান্য দেয়াসহ বিশ্বে শান্তি ও সম্প্রতি বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় চলতি বছরে ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালাম স্মরণে দেয়া ডক্টর কালাম স্মৃতি ইন্টারন্যাশনাল এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনার হাতে এই পদক তুলে দেন ভারতের ড. কালাম স্মৃতি ট্রাস্টের প্রধান উপদেষ্টা রাষ্ট্রদূত শ্রী টিপি শ্রী নিবাসন।

পুরস্কার গ্রহণ করে অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে বাংলাদেশ-ভারতের ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান নানা জটিলতা নিরসনে সক্ষম হয়েছে সরকার। এই ধারা অব্যাহত রেখে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে দুদেশের উন্নয়নে কাজ করে যাওয়ার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তার সরকারের নেয়া নানা পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের আস্থা অর্জনে সফল হওয়ায় দেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। কেউ যেন উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে না পারে সেদিকে সতর্ক থাকতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান সরকার প্রধান।

জনগণই দেশের মূল শক্তি। তাই প্রাপ্ত সব সম্মাননা দেশের মানুষের প্রতি উৎসর্গ করেন শেখ হাসিনা।

সরকার পরিকল্পনা অনুযায়ী এগিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে নির্ধারিত সময়ের আগেই টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে সকলের সহযোগিতা চান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Check Also

আগামী মাসেই আবরার হত্যা মামলার চার্জশিট: মনিরুল

শিবির সন্দেহেই বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম …