চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বাড়াবে ‘বে টার্মিনাল’

চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে নির্মিত হতে যাচ্ছে ‘বে টার্মিনাল’। বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, টার্মিনালের জন্য জমি অধিগ্রহণ শেষ হয়েছে। চলছে পরবর্তী পর্যায়ের কাজ। এদিকে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই ‘বে টার্মিনালে’র নির্মাণ সম্পন্ন করার তাগিদ জানালেন বন্দরনগরীর ব্যবসায়ী নেতারা। তারা বলছেন, এর ফলে দেশের আমদানী-রপ্তানী বাণিজ্যের আকার ও গতি কয়েকগুন বাড়বে।

দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির স্বর্ণদুয়ার হিসেবে খ্যাত চট্টগ্রাম বন্দর। ২০১৬ সালে এই বন্দরে জাহাজ ভিড়ে ৩ হাজার ১৪ টি। ২০১৭ তে এই সংখ্যা ছিলো ৩ হাজার ৩৭০টি। আর, ২০১৮ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৩ হাজার ৮৮৮টিতে। এভাবেই প্রতিবছর বাড়ছে জাহাজ, কার্গো এবং কন্টেইনার হ্যান্ডলিং। যা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা চট্টগ্রাম বন্দরের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। তাই বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে সরকার ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর উপকূলে নতুন জেগে উঠা চরসহ প্রায় ২ হাজার ৫০০ একর জমিতে বে-টার্মিনাল নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করে। যা ২০২২ সালে শেষ হওয়ার কথা।

বহুল প্রত্যাশিত এই টার্মিনালটি নির্মিত হলে তা দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলেই মনে করেন বন্দরনগরীর ব্যবসায়ী নেতারা। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই বে টার্মিনালের নির্মাণ শেষ করার তাগিদ দিলেন তারা।

বন্দর কর্তপক্ষ জানিয়েছে, বে টার্মিনালের ভূমি অধিগ্রহণ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। এখন চলছে নকশা চূড়ান্তকরণ ও কনসালটেন্ট নিয়োগের কাজ।

বে-টার্মিনালটি চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ে আকার ও আয়তনে কয়েকগুণ বড় এবং সক্ষমতাও বেশি। যা দেশের আমদানী-রপ্তানী বাণিজ্যকে কয়েক ধাপ এগিয়ে নিতে সক্ষম।

Check Also

গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জে গোলাগুলিতে ২ জন নিহত

গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জে র‌্যাবের সাথে গোলাগুলিতে দুইজন নিহত হয়েছে। গত রাতে এই গোলাগুলির ঘটনায় নিহত …