নির্বাচন ২০১৮ আন্তর্জাতিক রাজনীতি ব্যবসা ও অর্থনীতি খেলা বিনোদন লাইফ প্রযুক্তি বিজ্ঞান স্বাস্থ্য খাবার ও রেসিপি সাহিত্য মতামত জোকস জটিল ফটো ভিডিও অ্যানালিটিক্স পিপল অফার বিডিং প্রিয় পিন বাংলাদেশ সাজা স্থগিত চেয়ে খালেদা জিয়ার আপিল

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাজা স্থগিত ও জামিন চেয়ে আপিল করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ মামলায় হাইকোর্ট তাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করেন।

১৪ মার্চ, বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। আপিল করার পর কায়সার কামাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘আবেদনে সাজা স্থগিতের পাশাপাশি বেগম খালেদা জিয়ার জামিনও চাওয়া হয়েছে।’

গত বছরের ৩০ অক্টোবর দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের প্রেক্ষিতে খালেদা জিয়াকে ১০ বছর কারাদণ্ড দেন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ। একইসঙ্গে ৫ বছরের দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে খালেদা জিয়ার করা আপিল খারিজ করে দেয় আদালত।

এর আগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বকশীবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত। খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান, সাবেক সাংসদ কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রায়ে খালেদা জিয়াসহ ছয় আসামির সবাইকে মোট ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা ৮০ পয়সা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। রায় ঘোষণার পরপরই খালেদা জিয়াকে ওই দিন বিকেলে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া, কাজী সালিমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদ পৃথক আপিল করেন। পরে গত বছরের অক্টোবরে বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার করা আপিল খারিজ করে তার সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়।

Check Also

খালেদার নামে তোলা হচ্ছে বগুড়া-৬ আসনের মনোনয়ন

বগুড়া-৬ আসনে উপনির্বাচনে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নামে মনোনয়ন ফরম তোলার জন্য ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান …