ভেনেজুয়েলায় পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ সেনাবাহিনীর প্রশংসা করলেন মাদুরো

রাজনৈতিক টানাপোড়েন ও বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নতায় ভুগতে থাকা ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাসে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ করেছে সরকার সমর্থক ও বিরোধীরা। শনিবার সমর্থকদের মিছিলে দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুইদোর নেতৃত্বাধীন অভ্যুত্থান ঠেকানো এবং নিজের প্রতি অনুগত থাকায় তাদের প্রশংসা করেছেন। দেশজুড়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নতার জন্য বিরোধীদের সাইবার হামলাকে দায়ী করেন তিনি। এদিন রাজধানী কারাকাসে মাদুরো বিরোধী বিক্ষোভে গুইদোর কয়েকজন সমর্থক পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কিতে জড়িয়ে পড়লেও বড় ধরণের কোনও সংঘর্ষ হয়নি বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। এদিন সমর্থকদের মিছিলে শিগগিরই কারাকাসে আরেকটি বড় বিক্ষোভ আয়োজনের ঘোষণা দেন গুইদো।
নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধী দলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। এরপরই তাকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টিরও বেশি দেশ। গত মাসে মার্কিন ত্রাণ ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ নিয়ে কলম্বিয়া সীমান্তে মাদুরো সরকারের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় গুইদো সমর্থকরা। ত্রাণ প্রবেশ সমন্বয় করতে ওই সময়ে কলম্বিয়াযাওয়া গুইদো পরে লাতিন আমেরিকা সফর করেন। গ্রেপ্তারের ঝুঁকি নিয়ে গত ৪ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) সস্ত্রীক দেশে ফিরেও আসেন। তার তিন দিনের মধ্যে দেশটির ২৩টির মধ্যে ১৮টি রাজ্যের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় অন্ধকারে কাটাতে হচ্ছে বাসিন্দাদের। বিক্ষোভ শুরুর পর থেকেই নিজ দেশের সেনাবাহিনী এবং চীন ও রাশিয়ার মতো ঘনিষ্ঠ মিত্রদের সমর্থন পাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট মাদুরো। শনিবার রাজধানী কারাকাসে প্রেসিডেন্টের বাসভবন মিরাফ্লোরস’র বাইরে এক মিছিলে বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুইদোকে আবারও যুক্তরাষ্ট্রের পুতুল হিসেবে আখ্যা দেন মাদুরো। তিনি বলেন, তারা সশস্ত্রবাহিনীকে সামরিক অভ্যুত্থান ঘটানোর ডাক দিয়েছিলো। আর তাদের জবাব ছিলো পরিস্কার-অভ্যুত্থান ষড়যন্ত্রকারীদেরই পরাজিত করে দিয়েছে তারা। গত ২৩ মার্চ নিজেকে প্রেসিডেন্ট ঘোষণার পর থেকে বহুবারই জুয়ান গুইদোকে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদী শক্তির সহায়তায় অভ্যুত্থানের ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে অভিযুক্ত করেছেন মাদুরো। শনিবার মাদুরো সমর্থকদের মিছিলের দিনেও রাজধানী কারাকাসে বিক্ষোভ করেছে গুইদোর সমর্থকরা। তবে পুলিশ তাদের ওপর অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ করেনি বলে জানিয়েছে বিবিসি। সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, কয়েকজন বিক্ষোভকারী দাঙ্গা প্রতিরোধী পোশাক পরা পুলিশকে ‘খুনি’ আখ্যা দিয়ে স্লোগান দিলে তাদের ওপর পিপার স্প্রে ছোঁড়া হয়। বিক্ষোভকারীদের মিছিলে জুয়ান গুইদো দেশ সফরের ঘোষণা দিয়ে বলেন, রাজধানী কারাকাসে শিগগিরই একটি বড় বিক্ষোভে যোগ দিতে সমর্থকদের আহ্বান জানাতে ওই সফর করবেন তিনি। গুইদো বলেন, ‘ভেনেজুয়েলার সব অধিবাসীকেই আমরা কারাকাসে নিয়ে আসবো, কারণ আমাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে’।

Check Also

সুপ্রভাত-জাবালে নূর বাস চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

সুপ্রভাত পরিবহনের সাথে জাবালে নূর পরিবহনের সবগুলো বাস চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন …