অনুমোদন ছাড়াই দেশে তৈরি পোশাক উৎপাদন করছে প্রায় সাড়ে সাতশ’ কারখানা

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের অনুমোদন ছাড়াই তৈরি পোশাক উৎপাদন করছে প্রায় সাড়ে সাতশ’ কারখানা। এসব কারখানার সংস্কার কার্যক্রম হতাশজনক হওয়ায় গত বছর তাদের লাইসেন্স নবায়ন করেনি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তারপরও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে উৎপাদন অব্যাহত রেখেছে এসব কারখানা মালিক।

রানা প্লাজা ধ্বসের পর বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের ৩ হাজার ৮শ’ ৭০টি কারখানাকে সংস্কারের আওতায় আনা হয়। গঠন করা হয় উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপের ক্রেতাদের সমন্বয়ে একর্ড ও অ্যালায়েন্স। পাশাপাশি কাজ করে দেশীয় তত্ত্বাবধানে ন্যাশনাল ইনিশিয়েটিভ একশন প্লান। যার অধিনে ১৫শ’৪৯টি কারখানা সংস্কারের পরিকল্পনা নেয়া হয়। এসব কারখানার অর্ধেকের বেশি সংস্কার কাজ ২০ শতাংশেরও নিচে। তাই এসব কারখানার লাইসেন্স নবায়ন বন্ধ করে দিয়েছে শিল্প মন্ত্রনালয়ের কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শণ অধিদপ্তর-ডাইফ।

এসব কারখানা সাধারণত অন্য কারখানার অর্ডার নিয়ে পোশাক তৈরি করে দেয়।বিদেশী ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো এসব কারখানার মানের বিষয়টি সেভাবে দেখে না।

তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ বলছে, সংস্কারের বাইরে থাকা এসব কারখানার মালিকদের সাথে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে কারখানা চলবে কিনা।

ডাইফের তথ্য মতে, এসব কারখানার অধিকাংশই ঢাকায় এবং ভাড়া করা ভবনে চলে।

Check Also

খালেদার নামে তোলা হচ্ছে বগুড়া-৬ আসনের মনোনয়ন

বগুড়া-৬ আসনে উপনির্বাচনে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নামে মনোনয়ন ফরম তোলার জন্য ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান …